১৬ তম গ্রেডে বেতন কত ২০২৪

বর্তমান দেশের এই পরিস্থিতিতে সরকারি চাকরি যেন এক সোনার হরিণ। অনেক পড়াশুনা করার পর অনেক ডিগ্রি অর্জন করার পরও অনেকের সরকারি চাকরি হচ্ছে না কিংবা হয় না। যাদের হয়ে যায় তাদের কপাল সোনায় সোহাগা। ধরতে গেলে বাংলাদেশের অনেক মানুষই বেকার জীবন যাপন করছে। এবং এর ফাঁকে ফাঁকে তারা বিভিন্ন সরকারি কিংবা বেসরকারি চাকরির আবেদন করে আসছে। যেহেতু সরকারি চাকরির উপর সকলের নজর, তাই হয়তো সকলেই সরকারি বেতন সম্ভবকে কেমন অবগত নন। তাই প্রত্যেকেই সরকারি চাকরির বেতন স্কেল সম্পর্কে জানতে চাই। তাই আজকের এই প্রতিবেদনে ১৬ তম গ্রেডে বেতন কত তা আপনাদের মাঝে বিস্তারিত আলোচনা করব। 

আজকের এই সুন্দরতম প্রতিবেদনে আপনাদের মাঝে সরকারি চাকরির নিয়ে বিভিন্ন তথ্য, এবং নানাবিধ বেতন স্কেল নিয়ে আলোচনা করব। যারা ইতিমধ্যেই সরকারি চাকরি করে করছেন, এবং সরকারি চাকরির জন্য হননি হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন তাদের জন্য আজকের এই সুন্দরতম প্রতিবেদনটি সাজানো হয়েছে। সরকারি চাকরির অনেকগুলো বেতন স্কেল থাকার কারণে অনেকেই সঠিক বেতন স্কেলটি, এবং কোন শ্রেণীর কর্মকর্তার বেতন কত তা হয়তো জানেন না। প্রত্যেকেই অনলাইনে এইসব সরকারি বেতন স্কেল খুজে থাকেন, তাই আপনারা আমাদের এই প্রতিবেদন থেকে সকল বেতন স্কেল সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জেনে নিন। আশা করছি এই আর্টিকেলটি থেকে সঠিক তথ্যটি পেয়ে যাবেন।

১৬ তম গ্রেডে বেতন কত

ধরতে গেলে এখন চাকরির বাজারে আগুন লেগে আছে। অনেকে চায় যেকোনো চাকরি হলেই তাদের মাথা গোজার কোন ঠাই হবে। তাই তারা যেকোনো নিম্ন শ্রেণীর চাকরি করতে আগ্রহী হয়ে থাকে। দেশে অনেকেই বর্তমানে ১৬ তম গ্রেডের বেতনে চাকরি করছে প্রভুর সংখ্যক জনগণ। যদিও ১৬ তম গ্রেডে বেতন স্কেল তেমন উচ্চ মানের নয় তবুও মানুষ এই ১৬ তম গেটের চাকরিতে আবেদন করতে হুমড়ি খেয়ে পড়ে। সরকারি চাকরিতে মোট ২০ টি গ্রেডে বেতন স্কেল হয়ে থাকে। একজন অফিস সহকারী সহ বিভিন্ন পদ এই ১৬ তম গ্রেডে বেতনে চাকরি করে আসছে। মূলত ১৬ তম গ্রেডের একজন কর্মচারী সর্বোমোট বেতন ভাতাদি ১৭,৩৪৫ টাকা মাত্র। ১৬ গ্রেডে বেতন স্কেল ৯৩০০ টাকা শুরু করে ২২৪৯০ টাকা পর্যন্ত রয়েছে, প্রতি বছর বেতন বৃদ্ধি পেয়ে সর্বোচ্চ ২২৪৯০ নব্বই পর্যন্ত মূল বেতন হতে পারবে।

১৬ তম গ্রেডের চাকরি

আধুনিক এই বাংলাদেশে এখন ১৬ তম গ্রেডের চাকরি অনেক স্বল্প আয়ের হয়ে যায়। তবুও মানুষের দুর্দশার সময় এখন অনেকেই চায় শুধু মাথা গুজে ঠাই হওয়ার মতন কোন চাকরি। যদিও ১৬ তম গ্রেডের চাকরির বেতন স্কেলে অসংখ্য পদ রয়েছে সেহেতু এই চাকরি নিয়ে অনেকেই উচ্চতর ডিগ্রী এবং অনেক দূর পড়াশোনা করে ১৬ তম গ্রেডের বেতনে চাকরি করে আসছে। বর্তমান সময়ে ১৬ তম গ্রেডের চাকরির অনেক সার্কুলার রয়েছে। যদি আপনি ১৬ গ্রেডের চাকরি করতে ইচ্ছা পোষণ করে থাকেন তাহলে ইতিমধ্যেই আপনার যোগ্যতা অনুযায়ী ১৬ তম গ্রেডের চাকরির জন্য আবেদন করতে পারবেন। ১৬ তম গ্রেডের চাকরি সাধারণত দ্বিতীয় শ্রেণীর চাকরি বলা হয়ে থাকে। মূলত ১১ থেকে ১৬ তম গ্রেডের চাকরি সাধারণত সরকারি দ্বিতীয় শ্রেণীর কর্মকর্তা বলা হয়ে থাকে।

১৬ তম গ্রেডের বেতন স্কেল ২০২৪

যেকোনো চাকরিতে বছর প্রতি বেতন বৃদ্ধির হয়ে থাকে। সুতরাং সেই ক্ষেত্রে সরকারি চাকরির ক্ষেত্রেও বিকল্প নেই। তথাপি যারা সরকারি ১৬তম গ্রেডের বেতন স্কেল জানেন না, তা অবশ্যই আমাদের এই প্রতিবেদন থেকে ১৬ তম গ্রেডের বেতন স্কেল ২০২৪ এবং নতুন বেতন স্কেল সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্যটি জেনে রাখু*ন। যদিও ১৬ তম গ্রেডের বেতন স্কেল খুবই স্বল্প তবুও এই গ্রেডে বহু সংখ্যক সরকারি কর্মকর্তা রয়েছে। বর্তমানে এখন ১৬ তম গ্রেডের সর্বনিম্ন বেতন ৯৩০০ টাকা। তবে বর্তমানে ১৬ তম গ্রেডের বেতন স্কেল অনেক উন্নত হয়েছে। যেহেতু সরকারি যেকোনো চাকরিতে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে চাকরি নিতে হয় সেক্ষেত্রে ন্যূনতম যোগ্যতা অনুযায়ী চাকরি পেতে হয়। ১৬ তম গ্রেডের চাকরি নিতে হলে আপনাকে অবশ্যই এইচএসসি উত্তীর্ণ হতে হবে, তবে আপনি ১৬ তম গ্রেডের স্কেলে চাকরি করতে পারবেন। যেহেতু বছর বছর বেতন বৃদ্ধির পদ্ধতি রয়েছে সেহেতু, ১৬ তম গেটের সর্বনিম্ন বেতন যদি ৯৩০০ টাকা হয়ে থাকে তা বৃদ্ধি পেয়ে এবং বিভিন্ন ভাতাদি দিয়ে ১৭,৩৪৫ টাকা হয়।

সরকারি কোন গ্রেডে বেতন কত টাকা

অনেকের জানার আগ্রহ থাকে সরকারি চাকরিতে কোন গ্রেডের বেতন কত টাকা হয়ে থাকে। যেহেতু সরকারি সকলেই পছন্দ করে তাই তাদের বেতন ও জানার আগ্রহ থাকে অনেকে। যদিও কোন ব্যক্তির বেতন বেতন জানা বা জিজ্ঞাস করা অভদ্রতার পর্যায়ে পড়ে, তবুও সরকারি চাকরির বেতন স্কেল কত তা জানার আগ্রহ হয় সবার। যেহেতু সরকারি চাকরিতে কয়েকটি পর্যায়ে গ্রেড রয়েছে, সেহেতু সরকারি চাকরির বেতন সম্পর্কে ধারণা নেই কারও। তাই আপনাদের মাঝে সরকারের কোন বেডের বেতন কত তার নিম্ন একটি ছক আকারে দেওয়া হল।

গ্রেড জাতীয় বেতন স্কেল ২০১৫ ইনক্রিমেন্ট ধাপ

  • গ্রেড ১ ৭৮,০০০ টাকা
  • গ্রেড ২ঃ ৬৬,০০০ থেকে ৭৪,৪৯০ টাকা
  • গ্রেড ৩ঃ ৫৬,৫০০ থেকে ৭৪,৪০০ টাকা
  • গ্রেড ৪ঃ ৫০,০০০ থেকে ৭১,২০০ টাকা
  • গ্রেড ৫ঃ ৪৩,০০০ থেকে ৬৯,৮৫০ টাকা
  • গ্রেড ৬ঃ ৩৫,৫০০ থেকে ৬৭,০১০ টাকা
  • গ্রেড ৭ঃ ২৯,০০০ থেকে ৬৩,৪১০ টাকা
  • গ্রেড ৮ঃ ২৩,০০০ থেকে ৫৫,৪৬০ টাকা
  • গ্রেড ৯ঃ ২২,০০০ থেকে ৫৩,০৬০ টাকা
  • গ্রেড ১০ঃ ১৬,০০০ থেকে ৩৮,৬৪০ টাকা
  • গ্রেড ১১ঃ ১২,৫০০ থেকে ৩২,২৪০ টাকা
  • গ্রেড ১২ঃ ১১,৩০০ থেকে ২৭,৩০০ টাকা
  • গ্রেড ১৩ঃ ১১,০০০ থেকে ২৬,৫৯০ টাকা
  • গ্রেড ১৪ঃ ১০,২০০ থেকে ২৪,৬৮০ টাকা
  • গ্রেড ১৫ঃ ৯,৭০০ থেকে ২৩,৪৯০ টাকা
  • গ্রেড ১৬ঃ ৯,৩০০ থেকে ২২,৪৯০ টাকা
  • গ্রেড ১৭ঃ ৯,০০০ থেকে ২১,৮০০ টাকা
  • গ্রেড ১৮ঃ ৮,৮০০ থেকে ২১,৩১০ টাকা
  • গ্রেড ১৯ঃ ৮,৫০০ থেকে ২০,৫৭০ টাকা
  • গ্রেড ২০ঃ ৮,২৫০ থেকে ২০,০১০ টাকা

১৬ তম গ্রেডের বেতন প্রাপ্ত কর্মচারীরা কোন শ্রেণীর কর্মকর্তা

যেহেতু সরকারি চাকরিতে বিভিন্ন ধরনের শ্রেণীভুক্ত রয়েছে। সেহেতু আপনার মাথায় ঘুরপাক খেতে পারে যে আসলে কোন গ্রেডের বেতন প্রাপ্ত কর্মচারীরা কোন শ্রেণীর কর্মকর্তা হয়ে থাকে। তাই আপনাদেরকে এই বিষয়ে বিস্তারিত জানাব। সাধারণত সরকারি কর্মচারীদের মোট ২০ টি গ্রেড রয়েছে। এরমধ্যে প্রথম দ্বিতীয় এবং তৃতীয় শ্রেণীর চতুর্থ শ্রেণীর কর্মকর্তা রয়েছে। সাধারণত ১ থেকে ৯ম তম গ্রেডের কর্মচারীরা প্রথম শ্রেণীর কর্মকর্তা। এবং ১৬তম গ্রেডের বেতন প্রাপ্ত কর্মচারীরা সাধারণত তৃতীয় শ্রেণীর কর্মকর্তা হিসেবে গণ্য থাকে।

সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন স্কেল

সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন স্কেল কয়েকটি পর্যায়ের হয়ে থাকে। সরকারি চাকরিজীবীদের গ্রেড ১ থেকে শুরু করে ২০ তম গ্রেড পর্যন্ত রয়েছে। প্রত্যেক গ্রেডের বেতন স্কেল আলাদা আলাদা। সাধারণত ১ থেকে ১০ তম গ্রেড পর্যন্ত মূলত প্রথম শ্রেণীর সরকারি কর্মকর্তা বলা হয়ে থাকে। এবং ১১ থেকে ১৬ তম গ্রেড পর্যন্ত দ্বিতীয় শ্রেণীর সরকারি কর্মকর্তা বলা হয় থাকে। এবং ১৭ থেকে ২০ তম গ্রেড পর্যন্ত তৃতীয় শ্রেণীর কর্মচারী বলা হয়ে থাকে। এদের প্রত্যেকের বেতন স্কেল আলাদা আলাদা হয়ে থাকে বিদায়ী সকলের মনে একটা আগ্রহ জাগে কোন গ্রেডের বেতন স্কেল কত টাকা। যারা প্রথম শ্রেণীর কর্মকর্তা তারা সাধারণত সর্বনিম্ন বেতন স্কেল ১৬০০০ থেকে শুরু করে ৭৪৪৯০ টাকা পর্যন্ত রয়েছে। এবং দ্বিতীয় শ্রেণীর কর্মচারীদের সর্বনিম্ন বেতন স্কেল ৯৩০০ শুরু করে ৩২১৪০ টাকা পর্যন্ত রয়েছে। এবং যারা তৃতীয় শ্রেণীর কর্মচারী রয়েছে তাদের বেতন স্কেল ৮২৫০ থেকে শুরু করে ২১৮০০ টাকা পর্যন্ত রয়েছে।

১৬ তম গ্রেডের সর্বসাকুল্যে বেতন কত টাকা

যেহেতু সরকারি চাকরি  সেহেতু এর বিভিন্ন ভাতা এবং সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। যারা সরকারি চাকরি করে থাকেন তারা অবশ্যই বিভিন্ন রকমের সুযোগ সুবিধা এবং নানা ধরনের ভাতা পেয়ে থাকেন। যারা সর্বসাকুল্যে বেতন সম্পর্কে অবগত নন তাদেরকে এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানাব। ১৬ তম গ্রেডের সর্বনিম্ন বেতন ৯ হাজার ৩০০ টাকা এবং সর্বসাকুল্যে 17045 টাকা। তবে অঞ্চল কিংবা বিভিন্ন সেকশন অনুযায়ী বেতন স্কেল কিছুটা কম বেশি হতে পারে।

সরকারি চাকরিজীবীদের অন্যান্য সুবিধা সমূহ

যারা সরকারি চাকরি করে থাকে তারাই মূলত বুঝতে পারে যে, সরকারি চাকরিতে কত ধরনের সুবিধা রয়েছে। সরকারি চাকরি মানেই হাতের মুঠোয় চাঁদ পাওয়া। নানাবিধ সুযোগ-সুবিধা এবং বিভিন্ন ভাতা এবং চাকরির শেষে মোটা অংকের পেনশন নিয়েই সরকারি চাকরি। সরকারি চাকরিতে তাদের বেতন স্কেলের পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের চিকিৎসা ভাতা এবং এবং নানা দিক সুযোগ-সুবিধা দিয়ে থাকে। এবং বিভিন্ন উৎসব এবং বাৎসরিক কিছু ভাতা পেয়ে থাকেন। এছাড়াও আরো নানা দিক সুবিধা রয়েছে যেমন, বাড়ি নির্মাণে ঋণ সুবিধা, ব্যক্তিগত কাজে গাড়ি সুবিধা, সু*দ মুক্ত ঋণ সুবিধা ইত্যাদি নানা দিক সুযোগ সুবিধা নিয়েই সরকারি চাকরি।

সর্বশেষ কথা

আজকের এই সুন্দরতম প্রতিবেদনটি যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই সবার মাঝে শেয়ার করে দিবেন, ধন্যবাদ।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top